১০০% খাঁটি নোয়াখাইল্লা – মৌলিক কিছু শব্দ

- মাস্টারমাইন্ড প্রিন্স মাহী

নোয়াখাইল্যা ভাষায় কিছু মৌলিক শব্দ আছে যেইগুলা বাংলাদেশের অন্য অঞ্চলে কিংবা প্রমাণ-বাংলায় নাই বা সাধারণত ব্যবহার করা হয় না । এইধরণের শব্দগুলার একটা আংশিক অভিধান নিচে যোগ করা হৈলো ।
আঁনতা > খলুই / স্রোতের মুখের ছোট মাছ ধরার একটা খাঁচার মত যন্ত্র ।
বরগ > কলাপাতা
দোচ্ছা > টুকরিজাতীয় ধান বা চাল রাখার জিনিস
কোরা > টুকরির চাইতে কয়েকগুন বড় মূলত ধান রাখার শীতলপাটি যেই উপকরণে বানানো হয় সেই উপকরণে তৈরী পাত্র
বিচইন > হাতপাখা
নারা > বিচালি / ধান কাটার পরে খেতে ধানগাছের যেই অংশটুকু অবশিষ্ট থাকে সেই অংশ
দারউয়া > জ্বালানি কাঠ
চইচ্চা > ডোবা / ছোটপুকুর
বিডা > সবজি চাষের জমি (ধানক্ষেতের চাইতে তুলনামূলক উঁচু) (নোট : ঘরভিটির ভিটি শব্দের পরিবর্তিত রুপ, তবে ভিন্নার্থে ব্যবহার হয় বলে মৌলিক শব্দের তালিকায়)
উন্নাল > ঘরের চাল থেকে বৃষ্টির পানি যেইখানে পড়ে সেই জায়গা
মাইরা > ডাঁটাশাক
ডুইল্যাহাগ > লালশাক (নোট : হাগ শব্দটা শাঁক শব্দের বিবর্তিত রুপ)
লাড়ইয়া-ছঁই > বরবটি
গঁইডা > লাঠির মধ্যে গোবর মাখাইয়া সেইটারে শুকাইয়া জ্বালানি হিসাবে ব্যবহার করার জন্য তৈরী দন্ড
বত্তন > বাসন
হাঙ্গডি > প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুর পরে বিবাহ করা দ্বিতীয় স্ত্রী (নোট : একইসময়ে একাধিক স্ত্রী থাকলে, তারা পরস্পরের সতীন হিসাবেই বলা হয়)
রাঁড়ি > বিধবা
হেত্তুনি > নোংরা মানুষ
কাচরা > ময়লা
হালা > খুঁটি (বড়)
রাব > ঝোলাগুড় (খেজুর রস জ্বাল দিয়ে ঘন করে তৈরী করা কালো রঙের ভিসকাস তরল)
আলবা > ঘন তরল (নোট : আতপ থেকে বিবর্তিত আলবা অন্য অর্থে)
ড্যাগা > কচি
ক-ইয়া/ হাইয়া > পেঁপে
মুচি > কাঁঠালের অনিষিক্ত ফল
চুম্মা > বড়শির ফাৎনা
চিন > খড়ের স্তুপ
উগুইর > সাধারণত ধানের গোলা রাখার জন্য তৈরী করা নিচু ধরণের মাচা
বাইনদুয়ার > পিছনের দরজা (নোট : দুয়ার শব্দটা অপরিবর্তিত)
আগদুয়ার > সামনের দরজা
হান্দি > চিপা, দুইঘরের মাঝের গলি
ডেলা / হিঁড়া > ঘরের বেড়ার বাইরের ঘরভিটির উঁচু বর্ধিত অংশ
বেতরঙি / বুইচ্চা মাছ > ভুতুম মাছ
মাল্তাই আম > ফজলি আম
বডইন > শীতলপাটি
দাঁড়ইয়া মাছ > মলাঢেলা জাতীয় ছোট মাছ
ডি- কোম্বা > খেতে উৎপাদিত জালিকুমড়া (নোট : কোম্বা শব্দটা কুমড়ার পরিবর্তিত রুপ)
কুঁইয়ুঁর > আখ, গেন্ডারি
লাইল্লা হিমড়া / হিম্বা > লাল পিঁপড়া (নোট : হিম্বা শব্দটা পিঁপড়া শব্দের পরিবর্তিতরুপ । লাইল্লা শব্দটা লালের সমার্থক শব্দ । কেবলমাত্র পিঁপড়ার ক্ষেত্রেই এই ব্যবহার)
এলইচা হাগ > হেঁচিশাক
দু-নি > ফেন সরানোর জন্য ব্যবহৃত মাটির পাত্র
চঁ-ই > বড় পিঁড়ি (চৌকি থেকে বিবর্তিত চঅই, চৌকি অর্থেই ব্যবহৃত হয়)
হুরা > চাল মাপার জন্য ব্যবহৃত ছোট পাত্র (হুরা আবার ওজনের একক হিসাবেও ব্যবহৃত হয়, এক হুরা = মোটামুটি ২৫০ গ্রাম)
বৈন্ডা > ঢাকনা
চিবা > কাঠি
চটকা চিবা > সরু কাঠি (সাধারণত বাঁশগাছের ডালপালা)

(মোট পড়েছেন 1,177 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

মন্তব্য করুন