মা দিবসে মাহবুবুল আলমের একটি ছড়া ও একটি কবিতা

- মাহবুবুল আলম

মাহবুবুল আলম
মা দিবসের ছড়া

মায়ের মুখের মিষ্টি হাসি দেখে,
তাঁরই ছবি রঙ-তুলিতে এঁকে
রাঙিয়ে তোলি আমার ছবির খাতা,
ভরিয়ে তোলি পাতার পর পাতা।

মা জননীর কষ্টভরা মুখ,
কষ্টে ভাসায় আমার হৃদয় বুক
তাঁর সুখেতে হয়ে রঙিন ঘুড়ি,
নীল আকাশের সুদূরে যাই উড়ি।

যেখানে যাই যাইনা যত দূরে,
মা যে আমার ছায়া হয়ে ঘুরে
আমার মায়ের মায়াভরা মুখ,
তাঁহার সুখে আমার যত সুখ।

মা যে আমার দুঃখ সুখের সাথী,
তিনি আমার আশার আলো বাতি
আত্মত্যাগী আমার মহান মা,
তাকে যেন কখনো ভুলি না।

মাহবুবুল আলম
মা দিবস এবং এক মাতৃহারা সন্তানের শোকের পঙ্‌ক্তিমালা

আজ, মন আমার বড়ই ভারাক্রান্ত, অস্থির-চঞ্চল
যেন এক শোকের জায়নামাজ।

কালওতো মুখরিত ছিলেন সারাদিন
তপ্তরোদের নিকনো উঠোনে
বিছিয়ে দিয়েছিলেন শস্যদানা।

আয়, চৈ চৈ ডেকে ডেকে ছিটিয়েছিলেন
হাঁস-মুরগী-কবুতরের আদার,
মিনিকে বাটিতে দুধ, টাইগারকে সানকীতে
বেড়ে দিয়েছিলেন হাড়-মাংস, মাছ-ভাত।

সবাই ঘুমিয়ে গেলেও কাল রাতের
পুরোটা দ্বিতীয় প্রহর বারান্দায়,
বসেছিলেন ছেলেদের অপেক্ষায়,
আর বিরবির করছিলেন-
খোকারা যে কোথায় গেল
এখনো আসছেনা কেন?

তারপর যতসব দুঃশ্চিন্তা মাথায় নিয়েই
ঘুমোতে গেলেন মধ্যরাতে-
শেষ রাতেই ঘটে গেল প্রলয়।

তাঁর পানের বাটা, পিকদানী-রুমাল
জায়নামাজ, পালঙ্কে ঝুলানো তসবীহ
ঠিক ঠাক সবই আছে, শুধু তিনি নেই
এক্কেবারে চুপি চুপি চলে গেলেন
জীবনের ওপারে, না ফেরার দেশে।

এখন বাকি শুধু, কূলখানী, চেহলামের
মেজবান, ভুড়িভোজের মহাআয়োজন।

তারপর ড্রয়িংখাতায় পেন্সিলে আঁকা ছবির মতো
ফিকে হয়ে যাবে সব স্মৃতি আর স্মৃতির এ্যালবাম।

কিন্তু সন্তানের মন থেকে কি কোনোদিন
মুছে যায় মায়ের ছবির যতসব রঙিন পোস্টার
আদর-আহ্লাদ যতসব সাতকাহন?

কারো কারো মুছে না, কারো আবার মুছে যায়
এক-দুই-তিন কিছুকাল কিছু বছর
তারপরের প্রজন্মই ইজেলে ক্যানভাসে আঁকা
সব ছবি মুছে দিয়ে আঁকে তার প্রজন্মের ছবি।

এভাবেই মুছে যেতে যেতে কারও নাম নিশানা
আর এক বিন্দুও অবশিষ্ট থাকে না স্মৃতিতে।

(মোট পড়েছেন 371 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

১টি মন্তব্য

  1. :Yes-Sir:
    এমন একটা সুন্দর কবিতা উপহার দেবার জন্য আপনাকে সালাম।

    মা যে আমার দুঃখ সুখের সাথী,
    তিনি আমার আশার আলো বাতি
    আত্মত্যাগী আমার মহান মা,
    তাকে যেন কখনো ভুলি না।

মন্তব্য করুন