স্কুলের বই এবং পাগলের নৌকা দোলানোর গল্প

- নাজমুল আহসান

ঘটনাকাল ২০০৬ সাল হবে সম্ভবত। ছয়-সাত বছর বয়সী এক বাচ্চা আমাকে জিজ্ঞেস করল, ‘ভাইয়া কনডম কী?‘ আমি হতভম্ব হয়ে গেলাম! সেই বাচ্চাকে কী উত্তর দিয়েছিলাম, সেটা আজ আর মনে নেই। তখন রাস্তাঘাটে এইডস সচেতনতামূলক একটা বিজ্ঞাপন দেখা যেত; যেখানে লেখা ছিল, ‘যৌনরোগে আছে ভয়, বাপের বেটায় কনডম লয়। লাগবা বাজি?‘ বলা বাহুল্য, বিজ্ঞাপনের এই ডায়ালগ দেখেই শিশুমনে কৌতূহল জেগেছিল।

নিষিদ্ধ জিনিসের প্রতি মানুষের সবসময়ই একটা আগ্রহ থাকে, আকর্ষণ থাকে। সিগারেটের প্যাকেটে বড় বড় করে লেখা থাকে- ‘ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্যে ক্ষতিকর‘। আমার বিশ্বাস, ধূমপায়ীদের একটা অংশ এই লেখা দেখে ধূমপানে উৎসাহিত হয়। হতে পারে এই অংশ খুবই নগণ্য, হয়তো হাজারে একজন। তবুও কি বিষয়টা নেতিবাচক নয়?

অষ্টম শ্রেণির ‘বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়‘ (সাবেক সামাজিক বিজ্ঞান) বইয়ের ৮৬ নম্বর পৃষ্ঠায় লেখা- ‘শিশুদের ব্লুফিল্ম দেখা থেকে বিরত রাখতে হবে!‘ বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে এটা অনস্বীকার্য যে, অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়াদের কাছে ‘ব্লফিল্ম‘ পরিচিত শব্দ। কিন্তু তাই বলে তাদেরকে উস্কে দিতে হবে? আর এই বয়সী শতভাগ ছাত্রের কাছে ব্লুফিল্ম পরিচিত, তা কিন্তু নয়। এই পাঠের (?) মাধ্যমে নতুনদেরকে কি এই নিষিদ্ধ বিষয়ে আগ্রহী করে তোলা হচ্ছে না? এই বই তো অবুঝ শিশুরা পড়ে না; যারা পড়ে, তারা দিব্যি জানে যে ব্লুফিল্ম দেখা উচিৎ না।

পাগলের সেই জোকটা নিশ্চয়ই শুনেছেন। খেয়াঘাটের নৌকায় যাত্রীদের সাথে এক পাগল উঠেছে। পাগল বসে আছে নৌকার গলুইয়ে। নৌকা মাঝনদীতে গেলে অতি সচেতন এক লোক পাগলকে বলল, ‘ওই পাগলা, খবরদার নাও দোলাবি না। নাও ডুইবা যাইব।
পাগল এবার গলুই থেকে নৌকার মাঝামাঝি এসে নৌকার দুইদিকে দুই পা দিয়ে দোলাতে লাগলো আর বলতে লাগলো, ‘এই তো মনে পইড়া গেছে!

পাঠ্যবইয়ের ব্লুফিল্ম আর পাগলের নৌকা দোলানোর মধ্যে কোনো মিল খুঁজে পাচ্ছেন?

(মোট পড়েছেন 285 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

৯টি মন্তব্য

  1. অত্যন্ত সমসাময়িক এবং চমৎকার একটি লেখা।আসলে গুণীজন যেটা সতর্ক সূচক শব্দ ব্যবহার করছে এটাই অবুঝ কিশোর কিশোরীরা বেশী করে জানা এবং দেখার জন্য আগ্রহী হয়ে উঠছে এভাবে যে ‘আসলে এটা এমন কি’ যে নিষেধ করা হয়েছে ।এভাবেই পরোক্ষ ভূমিকা পালন হচ্ছে। তাই আমি নাজমুল ভাইয়ের সাথে একমত।

    1. হ্যা, ইমন ভাই। যাঁরা বড় দায়িত্বে থাকেন, তাঁদের বিবেচনা জ্ঞান আরো প্রসস্থ হওয়া উচিৎ বলে আমি মনে করি। কী বলেন?

      1. ১০০% সঠিক।কারণ সমাজের যারা নীতি নির্ধারণ পর্যায়ে থাকেন তাঁদের যে ভুল হবে না এটা ঠিক না ,তবে আরও বেশী বিচক্ষণ হবেন এমনটাই আমরা আশা করি।কারণ তাঁদের উপর আমাদের ভবিষ্যৎ অনেকাংশে নির্ভর করে।

মন্তব্য করুন