সহযাত্রী

- অনুপমা মিত্র

বাসে কিংবা ট্রেনে উঠিলে সকল অবিবাহিত যুবকই চায় তার পাশের সিটটিতে হুরপরী, আবেদনময়ী আর সমবয়সী কোন নারী বসুক। কিন্তু বিধি বাম!! নিম্নোক্ত টাইপের ছাড়া কখনও মনমত কেউ তো বইল না!!!

১। ইয়া মোটকা এক আন্টি। পাশের সিটটিতে বসলে চাপে পড়ে গেলেন আপনি। কি যে পেইন!!
(এই আন্টিরা খুব হন্ত-দন্ত টাইপের হন। সামান্য জানালা লাগানোর জন্য সুপারভাইজারকে ডেকে বাসের সবার ঘুম ভেঙ্গে দেন।মনে হয় নিজের টাকা দিয়ে বাস কিনে যাত্রায় আছেন)

২। কমবয়সী কোন ছেলে। খুব জড়সড়ো হয়ে বসে থাকবে। আপনি অনেকটা যায়গা পাবেন।
(কিন্তু সমস্যা হলো এরা আপনার সব কর্মকান্ড অতি মনোযোগ সহকারে দেখবে। আপনি চ্যাটিং করছেন , আপনার ফোনের স্ক্রিনের দিকে ডব্বির মত চোখ নিয়ে তাকিয়ে থাকবে। তবে এরা তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়ে, পথে আরাম পাওয়া যায়)।

৩। মধ্যবয়সী চাকরীজীবী কেউ। স্যুট-টাই পড়ে না থাকলেই দেখলেই অফিসের কাজে ভ্রমণ তা বোঝা যায়।
(ইনি রাস্তায় ফোন কিংবা নানারকম চিন্তা নিয়ে বিজি থাকেন। আপনার উপর বেশী নজরদারী করবে না)

৪। খাটাশ টাইপের লোক। সাধারণভাবেই আপনাকে নানাভাবে বিরক্ত করে মজা পাবেন ইনি।
(বসার সাথে সাথে একটা ডিপজল মার্কা লুক দিয়ে দিবে আপনাকে। আপনি উদাস মনে জানালা দিয়ে বাইরে দেখছেন। ধুম করে জানালাটা বন্ধ করে দিয়ে বলবে ‘বাইরে বাতাস’ কিংবা ‘ধূলা ওড়ে’। জানালা বন্ধের কারবার যাত্রাপথে ডজনখানেক বারও করে থাকেন এই লোক। আর তার নাক ডাকার মধুর শব্দ আপনার যাত্রাকে করবে আনন্দময়)

৫। অতি সাবধানী অভিভাবক। ইনি আপনার যাত্রাকে বিষময় করার জন্য একাই যথেষ্ঠ।
( যতঘন্টা গাড়ি চলবে ঠিক ততঘন্টাই এই আঙ্কেলের মুখ চলবে। উনার ছেলে মেয়ের কাহিনী, আপনার চৌদ্দ গোষ্ঠীর কাহিনী উদ্ধার করেই উনি যাত্রা শেষ করবেন। সাথে আপনার জন্য থাকবে একটন উপদেশ।)

৬। বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে যুবক। ইনি খুবই উত্তেজিত থাকেন।
( যদি তিনি নতুন শাদি করে থাকেন তাহলে দেখবেন মজা কারে কয়! অতি নিম্নস্বরে ফিসফাস করে ফোনে বউয়ের সাথে কথা বলেই সে আগাম উষ্ণতা নিতে থাকে। যাত্রাপথের বিরতিতে যেখানে গাড়ি থামাবে সেখানে যুবক খুজে দেখবেন তার স্ত্রীর জন্য কোন উপহার কেনা যায় কি না? তবে সহযাত্রী হিসেবে যথেষ্ঠ কো-অপারেটিভ টাইপের)

৭। ছোট ব্যবসায়ী কিংবা আড়তদ্বার কিংবা গৃহস্থ যার বাসায় ধান কাটা চলছে। হায় মোবাইল!!!
(পাশের লোকটির উচ্চস্বরে ফোনে কথা বলা আপনার যখন মাথাটা খেয়ে ফেলতে থাকবে তখন আপনার মাথায় একটা কথাই আসবে কয়েকঘন্টার জন্য সারাদেশে নেটওয়ার্ক যেন বন্ধ হয়ে যায়। ‘গরু দুইটা খোয়াড়ে দে’ ‘পচা তরমুজ কত কেজি হইছে?’ ‘চিটা ধান কত মণ বের হইল?’ ‘মহাজন কত টাকা পাইবে আর?’ আরও কত কথা বলে রে!!! মাথা মুতা খ্রাপ কইরা দেয়!)

আহা!! কবে যে একটা সুন্দরী রমণী পাশে আইসা বসব!! যাত্রা বড়ই আনন্দময় হইবেক। আশায় থাকি :p

কপি-পেস্ট।

(মোট পড়েছেন 93 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন