ভ্যাট কলঙ্ক

- অনন্য শুভ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা না দিয়ে এত তড়িঘড়ি করে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া কি ঠিক হলো? বকলম ভেবে আমাদের কাছে উন্নয়ন ফি, মেডিকেল ফি, এই ফি, সেই ফির সাথে এখন আবার ভ্যাট ও আদায় করতে চাচ্ছে। মন্ত্রী থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ পর্যন্ত-সবার চোখ যেনো লোভে চকচক করছে। ক্লাসে ঢুকলে মনে হয় রুমের টেবিল, চেয়ার সবকিছুই হাত পেতে টাকা চাইছে। এসির বাতাস ও যেনো বলছে গুন গুন করে বলছে টাকা দে, নতুবা গলা টিপে শেষ করে দিবো। উচ্চশিক্ষার সরল রাস্তা এখন একটাই-টাকা। আমার মনে হয়, যারা শিক্ষার্থীদের টাকার গাছ মনে করে, তাদের চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করা উচিত। আজকাল নিজেকে খুব হীন মনে হয়, বাবার কাছে বারবার টাকা চাইতে আর ভালো লাগে না, সদা সর্বদা নিজের বিবেকের সাথে যুদ্ধ করে চলেছি, আর পেরে উঠছি না।অনার্স শেষ করে বড়জোড় কোনো ব্যাংকের কার্ড ডিভিশনে চাকরি করবো। তাই আজকাল ভাবছি বই খাতা ফেলে অমুক তমুক মার্কার পতাকাতলে আশ্রয় নিবো। ছোটবেলায় প্রায়ই ভাবতাম বক্সার হবো, এ লাইনে উন্নতি করলে তো আর কেউ ঠেকাতে পারবে না। এছারা, এই ক্ষেত্রে কোনো ভ্যাট ও লাগবে না। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমি আর এই ভ্যাট কলঙ্ক এড়াতে পারলাম কই?

(মোট পড়েছেন 117 জন, আজ 1 জন)
শর্টলিংকঃ

৪টি মন্তব্য

  1. লেখা সুন্দর হয়েছে। সুন্দর আর সত্যের জয় হোক। শিক্ষার উপর থেকে ভ্যাট বিলোপের দাবি জানাচ্ছি।

  2. অনেকদিন পর ব্লগে ঢুকে সুন্দর একটা পোস্ট পড়লাম। ধন্যবাদ অনন্য শুভ।

মন্তব্য করুন